মোটা হওয়ার ১০ টি ঔষধের নাম ও প্রাকৃতিক উপায়

মোটা হওয়ার ঔষধ

শারীরিকভাবে যারা একটু চিকন তারা অনেকেই মোটা হওয়ার জন্য অনেক ধরনের চেষ্টা করে থাকেন অনেকেই দেখা যায়।

যে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ সেবনে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তবে মোটা হওয়ার জন্য বাড়তি কোনো ধরনের ঔষধ সেবন করে সেগুলো আমাদের জন্য পরবর্তীতে দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতির কারণ হতে পারে।

তাই আমরা আজকে আলোচনা করব কিভাবে আপনি প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হবেন এবং যদি কোন ঔষধ ব্যবহার প্রয়োজন হয় সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।





মোটা হওয়ার প্রাকৃতিক ঔষধ


আমরা বিভিন্ন ঔষধের মুখী না হয় প্রাকৃতিক কিছু উপায় আছে যেগুলো অবলম্বন করার মাধ্যমে আমরা শরীরকে মোটা করতে পারি। নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান পাশাপাশি যেসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে সেইসব খাবার বেশি পরিমাণ খেতে হবে।

এবং প্রয়োজনে ব্যায়াম করতে হবে তাহলে আমাদের শরীর কিছুটা মোটা হবে এছাড়া যে ধরনের মাংসল লাল যেমন গরুর মাংস আপনি খেতে পারেন।

কথায় আছে মাংস খেলে মাংস বাড়ে তাই আপনাকে দুধ ডিম মাছ মাংস নিয়মিত খেতে হবে।

দুশ্চিন্তামুক্ত জীবন যাপন করতে হবে কারণ দুশ্চিন্তামুক্ত থাকতে হবে যাতে আপনার মোটা হতে কোন ধরনের বাধাগ্রস্ত না হয় এবং শরীরে কোন ধরনের মারাত্মক ব্যাধি থাকলে সেটা আপনাকে সবসময় দুশ্চিন্তা রাখে সে ধরনের চিকিৎসা করান এবং ভালো থাকার চেষ্টা করো।

মোটা হওয়ার খাদ্য তালিকা

মোটা হওয়ার জন্য সব মানুষের খাদ্য তালিকা নয়। বয়স ও শারীরিক উচ্চতা অনুসারে খাবার খেতে হবে।

সে ক্ষেত্রে মোটা হওয়ার জন্য প্রোটিন এবং ক্যালরিযুক্ত খাবার বেশি খাওয়া উচিত।

পুষ্টির রাজাপ্রোটিন, তাই যেসব খাবারে প্রোটিন আছে সেসব খাবার বেশি পরিমাণে খাবেন। যেমন মাছ ,মাংস , ডিম, ছোলা বুট, মটরশুটি , কলা, বাদাম ইত্যাদি পর্যাপ্ত পরিমাণে খাবেন।

মোটা হওয়ার জন্য যখন চেষ্টা করব তখন আমাদেরকে খুঁজে বের করতে হবে কেন আমাদের শরীর চিকন যদি আমরা এটা বের করতে পারে তাহলে আমরা মোটা হতে পারব। আর শরীরের যদি পর্যাপ্ত পরিমাণে শক্তি থাকে তাহলে আমরা মোটা হতে পারব। আর মোটা হওয়ার জন্য আমাদেরকে যে ধরনের খাবার খেতে হবে তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে উচ্চমাত্রার প্রোটিন জাতীয় খাবার খেতে হবে। যেমন ডাল ডিম মাছ মাংস ইত্যাদি এ ধরনের কারণ রয়েছে প্রাকৃতিক নিজের প্রোটিন এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে আপনি যখন শাকসবজি খাবেন অর্থাৎ আপনার খাদ্য তালিকায় যখন আদর্শ খাবার থাকবে সেটা হতে পারে। বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি ডিম মাছ মাংস দুধ এবং প্রাকৃতিক খাবার যেসব খাবার বাজারে প্রক্রিয়াজাতকরণ ভাবে বানানো হয় সেই ধরনের খাবার থেকে এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন।

মোটা হওয়ার সহজ উপায়

সহজভাবে বলতে গেলে প্রথমে জানতে হবে যে আমরা কেন মোটা হব ?

আমরা খুব তাড়াতাড়ি যদি মোটা হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে আমাদেরকে বিভিন্ন হারবাল কোম্পানির ওষুধ সেবন করতে হবে।

এইসব ওষুধের রয়েছে উচ্চমাত্রার যা আমাদের শরীরকে মোটা করবে ঠিক।

কিন্তু আমাদের শরীরের শক্তি কমে যাবে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাবে।

তাই মোটা হওয়ার জন্য হামলা শর্টকাট পদ্ধতি নাম খুঁজে প্রাকৃতিক ভাবে পুষ্টিকর খাবার খেয়ে মোটা হওয়ার চেষ্টা করব।

সঠিক খাদ্যাভ্যাস এবং পর্যাপ্ত ঘুমই পারে আমাদেরকে সুস্থ ভাবে মোটা করতে।

তাই যারা মোটা হতে চান পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন জাতীয় খাবার খাবেন। ভাত মাছ মাংস দুধ ডিম ডাল এগুলো একটু বেশি পরিমাণে খাবেন।

রাতের বেলা সাত থেকে আট ঘণ্টা ঘুমানোর চেষ্টা করুন।

মোটা হওয়ার ঔষধের নাম

মোটা হওয়ার জন্য যদি আপনি কোন ডাক্তারের পরামর্শ নিতে চান সে ক্ষেত্রে একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন।

সাধারণত আমরা চিকন হয়ে যায় পুষ্টিকর খাবারের অভাবে।

তাই ডাক্তারের যখন আপনাকে ঔষধ দিবে তখন সাধারণ তবে ভিটামিন জাতীয় ঔষধ খাবার পরামর্শ দিবে।

ভিটামিন এ টু জেড এবং মাল্টিভিটামিন প্রেসক্রিপশনে লিখে দিবে।

আপনি যদি প্রাকৃতিক রাবার থেকে এসব ভিটামিন সংরক্ষণ করতে পারেন তাহলে আপনার কোনো ওষুধের প্রয়োজন হবে না।

স্বাস্থ্যবান হওয়ার ঔষধ

স্বাস্থ্যবান হওয়ার জন্য বিশেষ কোনো ঔষধ নেই তবে আপনি চাইলে আমাদের স্বপ্নের দেশ ফলো করতে পারেন।

এছাড়া আপনি পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন জাতীয় খাবার খাবেন এবং নিয়মিত ঘুমাবেন সে ক্ষেত্রে আপনার শরীর কিছুটা মোটা হবে।

আর যদি শরীরে ভিটামিনের ঘাটতি থাকে তাহলে মাল্টিভিটামিন খেয়ে দেখতে পারেন।

মাল্টিভিটামিন এমন একটা ঔষধ যেখানে শরীরের দরকারি সব ধরনের ভিটামিন থাকে।

দুশ্চিন্তাজনিত কারণে আপনার শরীর যদি জীবন থাকে সেই ক্ষেত্রে আপনি চিন্তা মুক্ত থাকার চেষ্টা করবেন।

মোটা হওয়ার ভিটামিন ঔষধের নাম

আমি যদি বাজারে মোটা হওয়ার জন্য ওষুধ কিনতে চান তাহলে অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে যাবেন। তবে আপনাকে যদি মোটা হওয়ার কথা বলা হয় আপনি হয়তো বলবেন যে আপনি তাড়াতাড়ি মোটা হতে চান এবং বাজারের হাতুড়ে ডাক্তার হারবাল চিকিৎসা কাছে যারা আপনাকে কিছু ওষুধ খেলে আপনার কিডনির সমস্যা হতে পারে। এবং দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা হতে পারে এসব ওষুধ সেবন করে তবে আপনি যে পুরুষ এবং পরে শরীরে পানি জমা হবে এবং আপনি মোটা হয়ে যাবে।

মোটা হওয়ার যদি আপনি হারবাল ঔষধের কাছে যান তাহলে তারা বিভিন্ন ধরনের ওষুধ দিয়ে থাকবেন যে সব পশুদের অনেক পার্শপ্রতিক্রিয়া আছে সেগুলো আপনি সেবন করবেন না। এছাড়া ডাক্তারের কাছে গেলে আপনাকে বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন জাতীয় টাইপের দিবেন যেমন মাল্টিভিটামিন পাশাপাশি মিনারেলস সহ বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন জাতীয় উপাদানে তৈরি ট্যাবলেট আপনাকে দেয়া হবে। তবে আপনি চাইলে এইসব ট্যাবলেট এর বিপরীতে এসব উপাদান যেসব খাবারে পাওয়া যায় সেগুলো গ্রহণের মাধ্যমে মোটা হওয়ার চেষ্টা করব।

আরো পড়তে পারেন :

চিকন হওয়ার উপায়: মাত্র ৭ দিনে চিকন হবেন

চুল পড়া রোধে করণীয় সমূহ

পুরো শরীর ফর্সা করার প্রাকৃতিক উপায়

পেট ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়

মোটা হওয়ার হোমিও ঔষধের নাম

হোমিওপ্যাথিক এ অনেক ধরনের ঔষধ পাওয়া যায় যেগুলো সেবনের মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পেতে পারি। তবে আমরা চাইলে আমাদের শরীর মোটা করার জন্য হোমিওপ্যাথিক এ কিছু ওষুধ গ্রহণ করতে পারি তবে এই ওষুধগুলো তেমন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া না থাকলেও সেটা আমাদের অনেকের পক্ষে খাওয়া উচিত হবে না। আমি কিন্তু আপনাকে আগেই বলেছি যে মোটা হওয়ার জন্য কোন ওষুধ সেবন করে নিয়মিত খাদ্যাভাসে। এবং পর্যাপ্ত পরিমাণে সঠিক খাদ্য গ্রহণ করি আপনি মোটা হওয়ার চেষ্টা করবেন। আর এত মোটা হলে শরীরের জন্য ভালো না সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে যেমন হবে সুঠাম দেহের অধিকারী হতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখবেন।

মোটা হওয়ার ইসলামিক উপায়

ইসলামিক কিছু উপায় আছে যেগুলো আমরা অবলম্বন করে আমাদের জীবনব্যবস্থাকে সঠিক এবং স্বাস্থ্য সমস্ত করে তুলতে পারি। আবাসন ইসলামী ছাড়ার ব্যবস্থা মেনে চলি সঠিকভাবে তাহলে ইসলাম আমাদেরকে সঠিক দিকনির্দেশনা দেবেন। এবং ইসলাম আমাকে দেখে বলে খাবারের সময় সঠিক পরিমাণে খাওয়া এবং যে পরিমান খাওয়া আমাদের উচিত সেটা আমাদের অবশ্যই ভালো খাবার খাওয়া কথা বলা হয়। এবং খাওয়া শেষে আমাদেরকে আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করতে হয় আমরা আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করব এবং হালাল খাদ্য কাপড় যাতে করে আমাদের শরীরের সব সময় প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। এবং আল্লাহর প্রতি খুশি হব সবসময় দোয়া করব যেন আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখেন এবং খাবারের সময় আমরা একবার ব্যবহার করে রাখবো।

mota howar upay

মোটা হওয়ার জন্য আমাদের দৈনন্দিন জীবনের খাদ্যাভাসের বিশেষ পরিবর্তন আনতে হবে।

পর্যাপ্ত পরিমাণে শাকসবজি দুধ ডিম এবং প্রোটিন জাতীয় খাবার খাবেন।

বেশি করে টাকা উঠাবেন যেমন ছোলা বুট মশারির ডাল এগুলোতে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে যা মোটা হওয়ার জন্য সহায়ক।

কোথায় আছে মাংস খেলে মাংস বাড়ে তাই বেশি পরিমাণে মাংস খাওয়ার চেষ্টা করুন।

এছাড়া বিভিন্ন ধরনের বাদাম ও প্রাকৃতিক ফ্যাট জাতীয় খাবার খেতে পারে।

পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করবেন এবং পুষ্টিকর খাবার খাবেন এক্ষেত্রে আপনার শরীর আস্তে আস্তে সুস্থ হতে থাকবে .

এবং যে ধরনের পুষ্টি বা ভিটামিনের অভাবে শরীর অসুস্থ বা মোটা হতে পারতে ছিল না সেই ধরণের পুষ্টির চাহিদা পূরণ করবে আপনার শরীর আস্তে আস্তে মোটা হবে।

মোটা হওয়ার হারবাল ঔষধ


মোটা হওয়ার জন্য কোন ধরনের হারবাল ওষুধ গ্রহণ করবেন না এটা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর এবং পরবর্তী জীবনে আপনি বিপদে পড়তে পারেন তাই হারবাল ওষুধ থেকে দূরে থাকবেন এবং এই ধরনের ঔষধের বিজ্ঞাপন অনেক ধরনের লোভনীয় প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল আপনার জন্য শুভ নয়

Mota hoar uoay

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *