চিকন হওয়ার উপায়: মাত্র ৭ দিনে চিকন হবেন

চিকন হওয়ার উপায়

আমাকে আমাদের মধ্যে যাদের শরীর একটু মোটা তারা অনেকেই চিন্তা করে নিজের শরীরকে চিকন। করার জন্য তো আজকে আমি আপনাদের সাথে দেখাবো কিভাবে আপনি আপনার শরীরকে খুব সহজ জীবন করতে পারবেন এবং এই চিকন করার শরীর দীর্ঘমেয়াদি ভাবে রাখতে পারবেন আজকের আলোচনা। থেকে আমি সবকিছু বিস্তারিত জানতে পারবেন।


শরীর চিকন করার কয়েকটি পদ্ধতি আছে পদ্ধতিগুলি আপনি অবলম্বন করতে পারেন। তবে আপনি যদি এই শরীর চিকন করার জন্য বা শরীরের মাংস চর্বি কমানোর জন্য কোন ওষুধ খেয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা হতে পারে তাই আমি আপনাদেরকে পরামর্শ দিব. কোন ধরনের ওষুধ খেয়ে শরীর চিকন করার চাইতে পারলেও চাইতে আপনি প্রাকৃতিক ভাবে বোঝানোর চেষ্টা করবে।


প্রাকৃতিক ভাবে ওজন কমানোর জন্য আপনাকে অবশ্যই কিছু খাদ্যাভাস আছে এবং নিয়মকানুন আছে সেগুলো মেনে চলতে হবে।

চিকন হওয়ার প্রাকৃতিক উপায়


যেমন আপনাকে নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। এবং যেসব খাবার আপনার মোটা হয়ে যাওয়ার জন্য দায়ী অর্থাৎ আপনি যদি বেশি পরিমাণ। ফ্যাট জাতীয় খাবার খান। তাহলে আপনি মোটা হয়ে যেতে পারেন এবং ওপরকেও অংশকে বসে থাকলে হবে।


অনেকেই আছে সার্বিকভাবে কোনো পরিশ্রম করো না এবং শুধুমাত্র ফাস্টফুড এবং মাজা বরাতের রাতে খাওয়ার ফলে শরীরে মোটা হয়ে যায় সমূহ নাকি যখন তখন প্রাকৃতিক।
যেসব খাবারে কোন ধরনের পার্টি উপাদান থাকে না যা। আমাদের শরীরের জন্য খুবই ভালো এবং প্রকৃতি থেকে আমরা ভরসা করে যা অনেকের জন্যই তো আজকে আমার সম্পর্কে।


শরীরে অন্যান্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য আপনাকে প্রাকৃতিক খাবার খেতে হবে এবং এখান থেকে আপনাকে সংগ্রহ করতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণে পশ্চিম ভারতীয় খাবার তাই আসবে যখন হজম চেষ্টা করবে।
চিকন হওয়ার জন্য আপনাকে পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রেম করতে হবে আপনি যেখানে মাংস বেশি বেশি সেখানে নড়াচড়া করতে হবে আপনি যদি বেশি পরিমাণ তাহলে।

আপনাকে অবশ্যই ব্যায়ামের পাশাপাশি কিছু খাবারের নিয়ম আছে যেগুলো আপনাকে অনুসরণ করতে হবে এবং বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে আমি চেষ্টা করব নিজেকে।

চিকন হওয়ার ঔষদ

বাংলাদেশের অনেক হোমিওপতি ঔষুধ আছে যে ওষুধগুলো গ্রহণ করতে পারেন আপনার নিজেকে চিকন করার ক্ষেত্রে তবে। আপনি এই সব ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এবং বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ইংলিশে কি বলে সেটা জেনে থাকাই কামনা করি আপনি জানেন না এটা আপনার বড় ধরনের ক্ষতির সম্ভাবনা থাকে তাই এ ধরনের কাজ করার আগে অবশ্যই ভেবে নেবেন।


যখন একজন মানুষ মোটা হয়ে যায় তার জন্য অনেক কিছু তাই তাকে এখন মোটা হলে আমাদের শরীরে অনেক সমস্যা দেখা দিলে আপনার মনটা যদি মাংসপেশিকে হয় অত মোটা হয় শরীরের অঙ্গ বলা।


শরীরের চর্বি পরিবর্তে মাংস দিয়ে যদি আমার মোটা হন তাহলে মোট আপনার জন্য কোন সমস্যা না যেমন বাংলাদেশের সবচেয়ে সেরা বডি বিল্ডার আছে এবং কুস্তিগীর আছে তারা এবং তার শরীরের মাংস বেশি থাকে।


যারা এধরনের ভাবে থাকে তাদেরকে নানা সমস্যার জন্য। যখন আপনি মোটা হয়েছেন তখন আপনাকে অনেক কিছু মানতে হবে কেননা একজন মুসলমান সমাজে অবহেলার শিকার হয় এবং অনেক কিছু করতে পারবেন যেমন করে। একজন মোটা লোক।

যখন যানবাহনে পরিবহন কর্পোরেশন রিকশায় বসে যাতায়াত করে তখন অনেকেই ব্যবহার করে এবং তিনি যখন রিকশায় বসেন তখন দেখা যায় যে একাই দখল করে নিয়েছেন পাশাপাশি বসতে পারেন। এ ধরনের রহমান হত্যার শিকার হওয়ার হাত।

থেকে বাঁচার জন্য আপনাকে নিজেকে চিকন করার জন্য চেষ্টা করতে হবে কেননা পিজিয়ন হয়ে। যাবে তখন কিন্তু আপনার শরীরের চামড়া আছে তাকে পরিমাণ ঠিক হয়ে যাবে কারণ। আপনি শারীরিক এবং মানসিকভাবে যখন সুস্থ থাকবেন তখন আপনাকে বলতে হবে যে ধরনের কাজ কেন করিস। মানুষ যখন একটা কাজ করে তখন একটা কাজের জন্য অপেক্ষা তার জন্য আমরা সুন্দর উপহার সামগ্রী ব্যবহার করে থাকি।

তারা তারই চিকন হওয়ার পদ্দ্বতি


শারীরিক মানসিক ভাবে জগন্নাথ এ ধরনের কাজ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই মানসিক ভাবে বসে থাকতে হবে এমন জানতে হবে যে এটা কেন করেছেন এবং এটা করা নতুনদের জন্য কি না সে বিষয়ে আপনাকে ধারণ করতে হবে।


সাময়িকভাবে আমরা বলতে পারিনি যখন একজন মানুষ শারীরিক ও মানসিকভাবে অসুস্থতাকে তাকে নিয়ে। আমরা অভ্যাস করব না এবং তার জন্য চিকন হয়ে যাবে তাই আমরা চেষ্টা করব। যেটা আমরা নিজের জীবনটা। শরীরে যে পরিমাণ চিকন হওয়ার স্বাভাবিক সে পরিমাণ চিকন হওয়ার চেষ্টা করব এর বেশিও না কমও তিনি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হওয়া ভালো না আমরা যেমন স্বাভাবিক মেনে নিয়ে আমরা আমাদের সবাইকে জানাবো স্বাগতম।


পারিভাষিক দিক বিবেচনা করে যখন একজন মানুষ। বিভিন্নভাবে প্রতিমন্ত্রী। এবং মোটা হয়ে যায় তাকে আমরা মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়বে যখন দেখি নি কেন কোন কাজ করতে পারছি না আগের মত সমাজে চলতে গেলে অসুবিধা হলে তাকে নিয়ে সমালোচনা করা।


তে মোটা হওয়ার জন্য আপনি যদি চেষ্টা করে তাহলে অবশ্যই আপনাকে জীবন হয়ে দেখতে হবে কেন জীবন যদি আপনি বলেন তাহলে আপনাকে দেখা যাবে যে এটা শরীরের জন্য খুবই স্বাস্থ্যকর।


একজন মানুষ যখন নিয়মিতভাবে খাবার খায় এবং এ খাবার যদি হজম প্রক্রিয়ার সমস্যা হয় এর পাশাপাশি তিনি খাবারগুলো যদি কাজে লাগাতে না পারেন তাহলে খাবার গুলো আস্তে আস্তে শরীরে জমা হয় এবং জমা হয়ে তার চর্বিতে রূপান্তরিত হয়েছে চলবে।

আমাদের শরীরের সব সময় লেগে থাকে এবং এটা পরবর্তীতে ফ্যাট হিসেবে কাজ করে এবং বিভিন্ন অঙ্গ-প্রতঙ্গ আমাদের যেতে সহায়তা করেছে তাকে আমরা ইনসুলিন রেজিস্টেন্স হিসেবে থাকে।

তাই ডাক্তার এবং বিশেষজ্ঞ সার্জনের পরামর্শ অনুযায়ী আমরা সবসময় চেষ্টা করব নিজেকে সঠিক নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার মাধ্যমে আমরা কিন্তু নিজেকে সুস্থ এবং স্বাভাবিক না করতে পারব।


পরিশেষে বলা যায় যখন একজন নাগরিক দেশ এবং জাতির কাছে এগিয়ে আসবে তখন অবশ্যই তাকে সুস্থ থাকতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *